1. admin@ednoub.com : Biplob Prodhan : Biplob Prodhan
  2. anikshil475@gmail.com : Anik Shil :
  3. ednoub17@gmail.com : Biplob Prodhan : Biplob Prodhan
  4. imransagor338@gmail.com : Imran Hossain Khan : Md Imran Hossain Khan
  5. konikasaha817@gmail.com : KS :
  6. officialslifeline@gmail.com : lifeline :
  7. maesha1904@gmail.com : Maesha Ahmed :
  8. rubelislambd283@gmail.com : Md nur :
  9. mimrajislammim@gmail.com : Md.Mimraj islam :
  10. 6273monishabarua3473@gmail.com : Monisha :
  11. mosfeka2020@gmail.com : Mosfeka jannat tajally :
  12. ofchayabb@gmail.com : OFChaYabdeng :
  13. projukta4500@gmail.com : Projukta mitra :
  14. rajuhossen003@gmail.com : Raju Hossain : Md Tarek Hosen Raju
  15. refatredoy15@gmail.com : Refat Redoy :
  16. rehananeha2k@gmail.com : Rehana :
  17. nuzhatulnuha@gmail.com : Sajeda Saki : Sajeda Saki
  18. sharabantahurameem@gmail.com : Sharaban Tahura :
  19. abusaeed625@gmail.com : Shirin Akhter :
  20. shirinakternipa@gmail.com : Shirin Akter Nipa : Shirin Akter Nipa
  21. sumasumaiya278@gmail.com : Sumaiya :
  22. tchayonray69@gmail.com : tchayon : Chayon Ray
  23. trishadeb707@gmail.com : Trisha :
As you like it Bangla Summary
Md Imran Hossain Khan
  • 5 months ago
  • 467
As You Like It Bangla Summary
#2ndYear

As You Like It (Bangla Summary)

William Shakespeare

নাটকের শুরু হয় এভাবে যে খুব রিসেন্টলি স্যার রোল্যান্ড ডি বয়েস মারা গেছেন এবং রীতি অনুসারে তাঁর সম্পত্তির বেশিরভাগ অংশ তাঁর বড় ছেলে অলিভারের দখলে চলে গেছে। যদিও মারা যাবার আগে স্যার রোল্যান্ড তার ছেলে অলিভারকে তার ভাই অরল্যান্ডোর ভাল যত্ন নেওয়ার নির্দেশ দিয়ে গিয়েছিল, তবে অলিভার তা করতে অস্বীকার করে পরবর্তীতে। এবং অর‍ল্যান্ডোর সাথে খুব বাজে ব্যবহার করে তার মন বিষিয়ে তোলে। ednoub
অলিভার প্রথমত অরল্যান্ডোকে একজন ভদ্রলোকের উপযুক্ত একাডেমিক শিক্ষা, প্রশিক্ষণ এবং সম্পত্তি দিতে সম্পূর্ন অস্বীকার করে। এর পরে আমরা দেখতে পাই চার্লস নামক এক লোক কে, যে কিনা ডিউক ফ্রেডেরিকের আদালতের একজন স্থায়ী কুস্তিগীর। সে অলিভারকে একটি খবর সম্পর্কে সতর্ক করতে এসেছিলেন যে পরের দিন অলিভারের ভাই অরল্যান্ডো নাকি চার্লসের সাথে লড়াইয়ে নামবে। যেটা খুবই মারাত্মক ব্যাপার হবে। ednoub
অর‍ল্যান্ডো যেহেতু অভিজাত পরিবারের তাই তাকে মারধর করা উচিত কিনা সেটা নিয়ে চিন্তিত হয়ে চার্লস অর‍ল্যান্ডোর ভাই অলিভারকে হস্তক্ষেপের জন্য অনুরোধ করেন, তবে অলিভার খুবই নির্দয় তাই সে এই কুস্তিগীরকে বুঝিয়ে দেয় যে অরল্যান্ডো একটি অসাধু ক্রীড়াবিদ এবং খারাপ মানুষ। তাকে মেরে ফেললেও কিছু আসে যায়না। অবশেষে, চার্লস অরল্যান্ডোকে সম্মান জানিয়ে বিদায় নেয়, যা অলিভারকে আনন্দিত করে। কারণ, সে খুবই অহংকারী ছিল। যাবার আগে, সাথে চার্লস এও জানায় যে পরের দিন সে অরল্যান্ডোকে পরাজিত করে কৌশলে মেরে ফেলবে।
ডিউক সিনিয়রকে তার ভাই ডিউক ফ্রেডরিক সিংহাসন থেকে হটিয়ে দিয়ে নিজে দখল করেছিলেন। ওদিকে প্রাণ বাচাতে ডিউক সিনিয়র আরডেন বনাঞ্চলে পালিয়ে যান, যেখানে তিনি বিশ্বস্ত অনুগামীদের একটি দল তৈরি করেন এবং তাদেরকে নিয়ে রবিন হুডের মতো জঙ্গলে বাস করেন। খুবই ফুর্তিতে দিন কাটছিল তাদের সেখানে।
ডিউক ফ্রেডেরিক তার নিজের মেয়ে সেলিয়ার সাথে ডিউক সিনিয়রের মেয়ে রোজালিন্ড এর অবিচ্ছেদ্য বন্ধুত্বের কারণে ডিউক সিনিয়রের কন্যা রোজালিন্ডকে প্রাসাদে একসাথে থাকার অনুমতি দেয়।
এদিকে অরল্যান্ডোর সাথে চার্লসের বিশাল লড়াইয়ের নির্ধারিত দিনটি চলে এসেছিল। সেখানেই অরল্যান্ডো এবং রোজালিন্ড তাত্ক্ষণিকভাবে একে অপরের প্রেমে পড়ে যান, যদিও রোজালিন্ড বুদ্ধিমতী মেয়ে ছিল তাই সে এই ঘটনাটি তার চাচাতো বোন সেলিয়া ছাড়া সবার কাছে গোপন রাখে। ednoub
অরল্যান্ডো একসময় কুস্তি প্রতিযোগিতা থেকে বিজয়ী হয়ে ফিরে আসে, কেবলমাত্র তাঁর বিশ্বস্ত দাস এবং কেয়ারটেকার এডাম কে বাচানোর জন্য। এডাম অরল্যান্ডোকে তার জীবনের ঝুকির কথা বলে দেয়। কারণ, অলিভার গোপন চক্রান্ত করছে অরল্যান্ডোকে মারার জন্য।
উপায় না পেয়ে প্রাণ বাচাতে অরল্যান্ডো তার কেয়ারটেকার এডামকে সাথে নিয়ে আরডেনের বনে সুরক্ষার উদ্দেশ্যে যাত্রা করার সিদ্ধান্ত নেয়। ডিউক ফ্রেডেরিক হঠাৎ রোজালিন্ড সম্পর্কে মনোভাব বদলে ফেলে এবং তাকে প্রাসাদ থেকে বের করে দেয়।
রোজালিন্ড নিজেও আরডেনের বনাঞ্চলে পালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল এবং সেলিয়াকে সাথে নিয়ে নেয়, সমস্যা হলো সেলিয়া তার বোন রোজালিন্ড এবং রাজসভার ভাড় যার নাম টাচস্টোন তাকে ছাড়া থাকতে পারে না। তাই তারা তিনজনই এক সাথে যাত্রা করে তাদের যাত্রার সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য। ওদিকে মেয়ে হিসেবে জঙ্গলে প্রবেশ করা বিপদজনক হতে পারে তাই ভেবে রোজালিন্ড একজন যুবকের পোশাক গ্রহণ করে অর্থাৎ সে ছেলে সাজে এবং নাম পরিবর্তন করে গ্যানিমেড রাখে, ওদিকে সেলিয়া একটি সাধারণ রাখালীর পোশাক পরে নিজেকে এলিয়েনা বলে পরিচয় দেয়।
 
ওদিকে ডিউক ফ্রেডেরিক তার মেয়ের অন্তর্ধানের খবরের কারণে খুব ক্ষুব্ধ হন। যখন তিনি জানতে পেরেছিলেন যে তাঁর কন্যা রোজালিন্ডের নিখোঁজের সাথে সমস্ত ঘটনা মিলে যায়, অতএব ডিউক অলিভারকে তিনি ডেকে পাঠান এবং তার মেয়েকে খুজে আনার আদেশ দেন তাকে, সাথে অলিভারের জমি ও সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার কথা বলে হুমকিও দেন। এক পর্যায়ে গিয়ে ডিউক ফ্রেডরিক সিদ্ধান্ত নেয় যে তার ভাই ডিউক সিনিয়রকে একবারে ধ্বংস করবেন এবং দরকার হলে সেনাবাহিনী লেলিয়ে দিয়ে তার বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করবেন।
 
ডিউক সিনিয়র আর্ডেনের বনাঞ্চলে স্বেচ্ছায় ডিউক ফ্রেডরিকের কাছ থেকে বিদায় নিয়ে চলে যাওয়া লোকদের নিয়ে একটি দল নিয়ে সেখানে বাস করেন। তিনি গাছের মধ্যে সরল জীবনের প্রশংসা করেন, আদালতের জীবনের যান্ত্রিকতা থেকে অনুপস্থিত থাকায় খুশি হন।
ওদিকে অর‍ল্যান্ডো ভ্রমণে ক্লান্ত হয়ে ও তার অনাহারী সহযোদ্ধা অ্যাডামের জন্য খাবার খুঁজতে মরিয়া হলে অরল্যান্ডো ডিউকের শিবিরে প্রবেশ করে এবং কঠোরভাবে ডাকাতের মত হুমকি দিয়ে দাবি করে যে তাকে খাবার না দেওয়া পর্যন্ত সে তাদের ছাড়বে না। ডিউক সিনিয়র অরল্যান্ডোকে ভাল ভাল কথা বলে শান্ত করেন এবং যখন তিনি জানতে পারেন যে ডাকাতরুপী যুবকটি তার প্রিয় প্রাক্তন মারা যাওয়া বন্ধুর ছেলে, তখন তাকে তাঁর দলে টেনে নেন।
এদিকে, গ্যানিমেড এবং আলিয়েনার ছদ্মবেশে যথাক্রমে রোজালিন্ড এবং সেলিয়া বনে পৌঁছার পর সিলভিয়াস নামে এক রাখালের সাথে দেখা হয়ে যায়। তারা তার কাছ থেকে তাদের কুটিরটিকে কিনে নেন। তারা চিনতে না পেরে তাকে যুবক হিসাবে গ্রহণ করে। অরল্যান্ডোর সাথে রোজলিন্ডের দেখা হয়ে যায় একসময় সেই বনে। যখন রোজালিন্ড জানতে পারে যে অর‍ল্যান্ডো তাকে ভালবাসে এবং তার জন্য চিন্তা করছে। তখন রোজালিন্ড খুবই খুশি হয়। গ্যানিমেড হিসাবে রোজালিন্ড দাবি করে যে এই ধরনের প্রেম ভালবাসাকে নিয়ন্ত্রন ক্ষেত্রে তিনি বিশেষজ্ঞ এবং সে বলে যে তার এই চিন্তার রোগ সারাতে হলে গ্যানিমেডকে রোজালাইন্ড বলে মনে করে তার সাথে মনের কথা বলতে হবে। প্রয়োজন হলে গ্যানিমেড নামক যুবককে রোজালিন্ড ভেবে তাকে মেয়ে মনে করে জড়িয়ে ধরতে হবে। উপায় না পেয়ে অর‍ল্যন্ডো তার সাথে এই ধরনের অভিনয় করতে রাজি হয় এবং প্রতি দিন তাকে রোজলিন্ডের মত ট্রিট করতে প্রতিশ্রুতি দেয়। অরল্যান্ডো একমত হয়, এবং এভাবেই এক অদ্ভুত প্রেমের পাঠ শুরু হয়। ednoub
 
এদিকে, সিলভিয়াসের প্রেম প্রত্যাখ্যান করার ক্ষেত্রে ফোবি নামের মেয়েটি ক্রমশ নির্দয় হয়ে ওঠে। এদিকে সমস্যা বাধে গ্যানিমেড নামক এক যুবকের ছদ্মবেশ ধারণ করার ফলে, ফোবি চিনতে না পেরে গ্যানিমেডের প্রেমে পড়ে যায়।
ওদিকে অলিভার বিপদে পড়ে বনে প্রবেশ করার পরই। তবে, তারই ফেলে দেয়া সেই ভাই অরল্যান্ডোই তাকে বাচায় তখন। অলিভার এবং সেলিয়া তাত্ক্ষণিক প্রেমে পড়ে এবং বিয়েতে রাজি হয় দুজনে। একটা সময় গিয়ে রোজালিন্ডের আসল পরিচয় ফাস হয়ে যায়। এভাবেই সবাই বেশ কিছু ভাল খবর পায়। যেমন ডিউক ফ্রেডরিক তার মনমানষিকতা পরিবর্তন করে সিংহাসনটি ডিউক সিনিয়রকে আবার ফিরিয়ে দেন। প্রত্যেক জুটিরা তাদের পছন্দমত পাত্র-পাত্রীকে লুফে নেয়। পাশাপাশি আমরা দেখতে পাই যে ডিউক সিনিয়রের দলের লোকজন নাচতে থাকে, কারণ তারা শীঘ্রই রাজদরবারে ফিরে আসবে এই জেনে খুবই খুশি তারা।
CEO and Head of IT Dept.
The EDNOUB Foundation

২ responses to “As You Like It Bangla Summary”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

About The Author
Md Imran Hossain Khan
Md Imran Hossain Khan is a freelance content writer specialising in research, education, sports, apparel, beauty, lifestyle, health and finance. With over ten years of experience, he has been published in the EDNOUB Foundation, Quora, Microsoft Support Blog, Facebook and numerous trade journals, including the Business Review. He has also appeared as a CEO and Head IT expert on The EDNOUB Foundation, Bangladesh. Imran enjoys bringing sensible tips to people of all income levels. He currently lives in Bangladesh and is available for freelance assignments and speaking engagements.

Facebook Like page

Archive

Sat Sun Mon Tue Wed Thu Fri
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930